সর্বশেষ আপডেট
বাবরি মসজিদ ও মুসলমানদের পক্ষে লিখলেন ভারতীয় হিন্দু লেখিকা । যুক্তরাজ্যে নিজ ঘরের পাশ থেকে এক বাংলাদেশির লাশ উদ্ধার । আবিষ্কৃত হলো ‘কৃত্রিম পাতা’ তৈরি করতে পারে ১০ শতাংশ বেশি জ্বালানি । আরো এক রেমিটেন্স যোদ্ধা কুয়েত প্রবাসী ভাই যেভাবে আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন পরপারে । লেবাননের গণআন্দোলনে অবৈধ প্রবাসীদের দেশে ফেরার কর্মসূচি ব্যাহত । ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের অর্থায়নে দেশে ফিরছেন গৃহকর্মী সুমি । আজ (১১ নভেম্বর) ঢাকায় আন্তর্জাতিক মুদ্রার বিনিময় মূল্য । চার্জার লাইট থেকে উদ্ধার হলো ৪ কোটি টাকার স্বর্ণবার । আরব আমিরাতের পুরুষ প্রবাসীকর্মীদের জন্য সুখবর, শুরু হল নতুন ওয়ার্ক পারমিট সুবিধা । ৩ বছরে সহজ উপায়ে কানাডা যাবে ১০ লাখ মানুষ ।
৭৫ বছর বয়সে কন্যা সন্তানের মা হলেন ।

৭৫ বছর বয়সে কন্যা সন্তানের মা হলেন ।

ভারতের রাজস্থানের কোটা এলাকায় ৭৫ বছর বয়সে কন্যা সন্তানের মা হয়েছেন এক বৃদ্ধা। শনিবার গভীর রাতে তিনি মা হয়েছেন বলে রোববার নিশ্চিত করেছেন চিকিৎসকরা। টেস্ট টিউব পদ্ধতিতে মানবদেহের বাইরে শুক্রাণুর দ্বারা ডিম্বাণু নিষিক্ত করার পদ্ধতি হিসেবে পরিচিত ‘আইভিএফর সহায়তায় মা হয়েছেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদসংস্থা আইএএনএস বলছে, শিশুটির ওজন মাত্র ৬০০ গ্রাম। রাজস্থানের কিনকর হাসপাতালে জন্ম নেয় শিশুটি। জন্মের পরপরই শিশুটিকে অন্য একটি হাসপাতালের আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়েছে। শিশু বিশেষজ্ঞদের একটি দল তাকে পর্যবেক্ষণ করছেন।

৭৫ বছর বয়সী ওই নারীর নিজের কোনো সন্তান নেই। তিনি একটি সন্তান দত্তক নিয়েছিলেন। নিজের সন্তান জন্মদানের আকাঙ্ক্ষা থেকে তিনি চিকিৎসকদের সঙ্গে পরামর্শ করেছিলেন। পরে চিকিৎসকরা তাকে মা হওয়ার সম্ভাবনার কথা জানান।

কিনকর হাসপাতালের চিকিৎসক অভিলাষ কিনকর বলেন, চিকিৎসকদের আশ্বাস পাওয়ার পর ওই নারী আইভিএফ পদ্ধতিতে মা হওয়ার চেষ্টা করতে চান। বৃদ্ধা ওই নারীর শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। সি-সেকশনের মাধ্যমে মাত্র সাড়ে ছয় মাসে শিশুটির অকাল জন্ম হয়েছে।

জন্মের সময় তার ওজন ছিল মাত্র ৬০০ গ্রাম। এছাড়া ওই নারীর মাত্র একটি ফুসফুস আছে; যা মেডিক্যালের চিকিৎসকদের কাছে চ্যালেঞ্জের ছিল। ওই নারী প্রান্তিক পর্যায়ের একটি কৃষক পরিবারের সদস্য। ৭৫ বছর বয়সে এসে নিজের সন্তান মা হওয়ার প্রবল ইচ্ছা পোষণ করেছিলেন; যা চিকিৎসকদের কাছে রীতিমতো চমকে যাওয়ার মতো ঘটনা ছিল।

আরো পড়ুন… আফ্রিকার ছোট্ট দেশ এরিত্রিয়ার সমস্ত পুরুষকে ন্যূনতম দু’টি বিবাহ করতেই হবে , যা আইনে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে। যদি দেশের কোনো পুরুষ বা নারী এই সিদ্ধান্তে আপত্তি করে, তা হলে শাস্তি হবে যাবজ্জীবন জেল। একে চন্দ্র, দুয়ে পক্ষ। এক্ষেত্রে প্রথম পক্ষ এবং দ্বিতীয় পক্ষ, দুটোই বাধ্যতামূলক। এমনই আজব আইনে সিলমোহর দিল এরিত্রিয়া সরকার।

আরবিক দেশগুলির মধ্যে এরিত্রিয়াতেই শুধুমাত্র এমন আজব আইন জারি করা হয়েছে। রীতিমতো ধর্মীয় আইনের মাধ্যমে এই নির্দেশকে মান্যতা দিলেন গ্র্যান্ড মুফতি। সরকারি সূত্রে জানানো হয়েছে, দেশে পুরুষের আকাল পড়েছে। এর আগে দীর্ঘদিন ইথিওপিয়ার সঙ্গে যুদ্ধের কারণে অনেক পুরুষ হারিয়েছে এরিত্রিয়া। ক্রমশ পুরুষশূন্য হয়ে পড়ছে এই দেশ। তাই দেশের স্বার্থেই এই আইন বলবৎ করল সরকার। প্রসঙ্গত, এরিত্রিয়ার জনসংখ্যা চৌষট্টি লক্ষেরও কিছু কম। এর এক দিকে সুদান আর ইথিওপিয়া, এক দিকে জিবুতি এবং অন্য এক দিকে লোহিত সাগর। দেশটি ইথিওপিয়া থেকে আলাদা হয়ে স্বাধীন রাষ্ট্র জন্ম হয় ১৯৯৩ সালে।

আম পাড়তে গিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশের একটি গাছ থেকে পড়ে শেখ ওমর তৌফিক নামে এক ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে ২০১৮ সালের বুধবার (৯ মে)। আর ২০১৯ সালের ৯ মে রাত সাড়ে ১০টার দিকে আরেকজন মারা গেলেন ডাব পাড়তে গিয়ে। শোকের মাতম ক্যাম্পাসজুড়ে। ওমর তৌফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উর্দু বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি কবি জসিম উদ্দীন হলে থাকতেন। তার গ্রামের বাড়ি সাতক্ষীরা জেলায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ২০১৮ সালের ৯ মে মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে বন্ধুদের সঙ্গে কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশের একটি গাছে আম পাড়তে ওঠে তৌফিক।

এ সময় পিছলে পড়ে তিনি গুরুতর আহত হন। আহত অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়। তৌফিককে আইসিইউতে নেওয়ার দরকার ছিল, তবে ঢামেক হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা না থাকায় তাকে জাপান-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতালে নেওয়া হয়। হলের ডাব গাছ থেকে পড়ে ঢাবি ছাত্রের মৃত্যু নারকেল গাছে ডাব পাড়তে গিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বরুণ বিশ্বাসের মৃত্যু হয়েছে।

বরুণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত গণিত বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। বৃহস্পতিবার (০৯ মে) রাত সাড়ে ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। সহপাঠীরা জানান, বরুণ জগন্নাথ হলেই থাকতেন। রাতে হল চত্বরের একটি নারকেল গাছে ডাব পাড়তে ওঠেন। কিন্তু অসাবধানতাবশত গাছ থেকে পড়ে যান। তাৎক্ষণিক উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বলেন, নিহত ছাত্রের মরদেহ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক এবং মর্মান্তিক। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসে এ ধরনের কাজ না করার জন্য আহ্বান জানান তিনি। সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme
[X]