সর্বশেষ আপডেট
হিন্দুদের ইয়োগা অনুশীলন করা হচ্ছে ভারতের মসজিদে টাঙ্গাইলে করোনা ভা’ই’রা’স আ’ত’ঙ্কে প্রবাসী স্বামীকে ছেড়ে পালাল স্ত্রী যে কারণে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় তৃতীয়স্থান পাওয়া ঢামেকের শিক্ষার্থীর আ’ত্ম’হ’ত্যা’র চেষ্টা দেহ ব্যবসায় বেশি বিবাহিত নারীরা, ফাঁস হলো গোপন তথ্য… মাহফিল থেকে ফেরার পথে আলোচিত মুফাসসির আব্দুল্লাহ আল-আমিন গ্রেফতার বুয়েটের সেই ইফতি এখন রকেট ইঞ্জিনিয়ার মানবপাচারে এমপি জড়িত, পররাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন ‘ভূয়া’ ঢাকায় রেললাইনে সেলফি তোলার সময় ট্রেনের ধাক্কায় কিশোর নিহত তাহসানের মত হ্যান্ডসাম হতে প্লাস্টিক সার্জারি করাচ্ছেন সৃজিত! করোনা আক্রান্ত সন্দেহে টাঙ্গাইলে প্রবাসীর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ স্থানীয়দের
বসবাসের জন্য ভারতের চেয়ে নিরাপদ পাকিস্তান!

বসবাসের জন্য ভারতের চেয়ে নিরাপদ পাকিস্তান!

বসবাসের ক্ষেত্রে ২০১৯ সালে সবচেয়ে বিপজ্জনক ২০টি দেশের তালিকা প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ ম্যাগাজিন দ্য স্পেকটেটর ইনডেক্স। সেই তালিকায় প্রতিবেশী দেশ ভারত ৫ নম্বরে থাকলেও বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের নাম তালিকায় নেই। এই তালিকা অনুযায়ী ভারতের চেয়ে বসবাসের ক্ষেত্রে অনেক বেশি নিরাপদ বাংলাদেশ ও পাকিস্তান। সদ্য বিদায়ী বছরে বসবাসের জন্য বিপজ্জনক ২০টি দেশের মধ্যে রয়েছে যুক্তরাজ্য ও
যুক্তরাষ্ট্রের নামও।

দ্য স্পেকটেটর ইনডেক্স বলা হয়েছে, ২০১৯ সালে বসবাসের জন্য বেঁচে থাকার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বিপজ্জনক দেশ হিসাবে ৫ নম্বরে নাম রয়েছে ভারতের। প্রথম ৪টি দেশ হল- ব্রাজিল, দক্ষিণ আফ্রিকা, নাইজেরিয়া ও আর্জেন্টিনা। ওই তালিকার ২০ নম্বর অর্থাৎ শেষে রয়েছে থাইল্যান্ড এর নাম।বসবাসের জন্য বিপজ্জনক দেশের তালিকা- ব্রাজিল, দক্ষিণ আফ্রিকা, নাইজেরিয়া, আর্জেন্টিনা, ভারত, পেরু, কেনিয়া, ইউক্রেন, তুরস্ক,

কলম্বিয়া, মেক্সিকো, ইউকে, মিশর, ফিলিপাইন, ইতালি, মার্কিন যুক্তরাস্ট্র, ইন্দোনেশিয়া, গ্রীস, কুয়েত, থাইল্যান্ড। ২০১৯ সালে স্নাতকধারীর ক্ষেত্রে সেরা দেশ, সৌর শক্তি, ভবিষ্যতে কার্যকরী দক্ষতা, লিঙ্গ সমতা, ইউরোপে দুর্নীতি, পাঠদানের ক্ষেত্রে সমালোচনামূলক চিন্তাভাবনা, ডিজিটাল দক্ষতা, ডায়াবেটিসে আক্রান্তের হার, বিশ্বের সবচেয়ে সম্মানিত পেশাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সেরা দেশগুলোর তালিকা প্রকাশ করেছে দ্য স্পেকটেটর ইনডেক্স।

আরো খবর… ভারত সবসময়ই পাকিস্তানের চেয়ে একধাপ এগিয়ে, বললেন প্রাক্তন পাক সেনাকর্তা । প্রকাশ্যে সত্যিটা স্বীকার করে নিলেন অবসরপ্রাপ্ত সেনা আধিকারিক। পাকিস্তানের চেয়ে ভারত সারা জীবন এক ধাপ এগিয়ে, একথা মেনে নিলেন পাকিস্তানের আর্মি জেনারেল (অবসরপ্রাপ্ত) গুলাম মুস্তাফা। রবিবার তিনি স্বীকার করেন, যে কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের ঘটনাই হোক, বা সেনা মুভমেন্ট-সব ক্ষেত্রেই এগিয়ে রয়েছে ভারত।

তিনি দাবি করেন স্ট্র্যাটেজিক চিন্তাভাবনাতেও বেশ পিছিয়ে রয়েছে পাকিস্তান। আর সেখানেই ভারতের কাছে বারবার পিছিয়ে পড়ে তারা। বলাই বাহুল্য প্রাক্তন সেনাকর্তার এহেন মন্তব্যে বেশ শোরগোল পড়ে গিয়েছে পাকিস্তান জুড়ে। এক পাক সংবাদমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাতকারে গুলাম মুস্তাফার দাবি ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের বিষয়টি নিয়ে এখন হইচই করলেও, আগে থেকে ভারতের পদক্ষেপ সম্পর্কে কোনও ধারণাই করতে পারেনি পাকিস্তান, তার কারণ তাঁদের মধ্যে দূরদর্শিতার অভাব রয়েছে। কোনও কিছুর ভবিষ্যত নিয়ে পাকিস্তান ভাবে না।

এদিন কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের ইস্যু নিয়ে বক্তব্য রাখেন গোলাম মুস্তাফা। তিনি বলেন পাকিস্তান এরকম করে ভাবতেই পারবে না। তাঁদের চিন্তাভাবনার সংকীর্ণতাই বেশ কয়েক ধাপ পিছিয়ে দিয়েছে ভারতের থেকে। এদিন তাঁর বক্তব্যে ১৯৬৫ সালের ভারত পাকিস্তান যুদ্ধের প্রসঙ্গও উঠে আসে। তিনি বলেন ওই যুদ্ধে পাকিস্তানের পরাজয় অবশ্যম্ভাবী ছিল। কারণ, ভারত যেভাবে হামলা চালিয়েছিল, পাকিস্তান একেবারেই তার জন্য প্রস্তুত ছিল না। লাহোর ও শিয়ালকোটের অদূরেই শুরু হয়েছিল যুদ্ধ।

এর আগে, প্রাক্তন মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব জেমস ম্যাটিসের দাবি ছিল, চুক্তি করার জন্য বা সম্পর্ক তৈরির জন্য পাকিস্তান অত্যন্ত বিপজ্জনক দেশ৷ ম্যাটিস সম্প্রতি তাঁর লেখা একটি বই প্রকাশ করেন৷ ‘Call Sign Chaos: Learning to Lead.’ শীর্ষক বইটিতে এমনই মন্তব্য করেছেন ম্যাটিস৷ এ খবর দিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম কলকাতা২৪।

মার্কিন প্রশাসনের শীর্ষ আধিকারিক জানান, ৩৭০ অনুচ্ছেদ প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। এটা তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। তবে নিশ্চিতভাবেই ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কাছে ট্রাম্প শান্তি ফেরানোর পদক্ষেপের কথা শুনতে চাইবেন। কাশ্মীরের মানবাধিকার কীভাবে রক্ষা করছেন, তাও জানবেন ট্রাম্প।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme