জেলেদের থেকে ফাও ইলিশ নিতে গিয়ে দুই পুলিশ সদস্য ধরা !

জেলেদের থেকে ফাও ইলিশ নিতে গিয়ে দুই পুলিশ সদস্য ধরা !

রাজবাড়ীতে সরকারি ফাও ইলিশ খেতে গিয়ে- চলমান ইলিশ রক্ষা অভিযানে আজ মঙ্গলবার পর্যন্ত রাজবাড়ীতে ২৬৭ জন জেলেকে বিভিন্ন মেয়াদে জেল-জরিমানা করা হয়েছে। সরকারি নি’ষে’ধা’জ্ঞা অমান্য করে পদ্মা নদী থেকে ইলিশ আহরণরত জেলেদের কাছ থেকে ফাও ইলিশ মাছ নিতে গিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের হাতে আ’ট’ক দুই পুলিশ সদস্য ধরা খেয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে রাজবাড়ী সদর উপজেলার ধাওয়াপাড়া ঘাট এলাকা থেকে তাদের আ’ট’ক করা হয়।আ’ট’ক’কৃ’ত পুলিশ সদস্যরা হল জেলা পুলিশ লাইন্সের সহকারী এএসআই শফিকুল ইসলাম এবং রাজবাড়ী কোর্ট পুলিশের কনস্টেবল ওসমান গণি।

জানা গেছে, পুলিশ সদস্য দুইজন ধাওয়াপাড়া ঘাট এলাকায় পদ্মা নদী থেকে অ’বৈ’ধ’ভা’বে ইলিশ আহরণরত জেলেদের কাছ থেকে ভ’য়-ভী’তি দেখিয়ে ফাও ইলিশ মাছ নিচ্ছিল। এ সময় রাজবাড়ী জেলা প্রশাসনের দুই সহকারী কমিশনার (নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট) মো. রফিকুল ইসলাম ও মো. আরিফুজ্জামান মৎস্য বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারী, র‌্যাব ও পুলিশ সদস্যদের নিয়ে সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করেন।

তাদের দেখতে পেয়ে পুলিশ সদস্য শফিকুল ইসলাম এবং ওসমান গণি ইউনিফর্ম খুলে দৌড়ে পালিয়ে যেতে থাকলে স্থানীয় জনগণ তাদের ধাওয়া করে ধরে উ’ত্ত’ম-ম’ধ্য’ম দিয়ে স্থানীয় মসজিদে নিয়ে আ’ট’কে রেখে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে হস্তান্তর করে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকারী সহকারী কমিশনার (নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট) মো. রফিকুল ইসলাম জানান, আ’ট’ক’কৃ’ত পুলিশ সদস্যদের মধ্যে শফিকুল ইসলামকে পুলিশ লাইন্সে এবং ওসমান গণিকে কোর্ট পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান বলেন, বিষয়টি শুনেছি। এ ব্যাপারে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বানরের আ’ক্র’ম’ণে পুলিশসহ আ’হ’ত ৭ মৌলভীবাজারের বড়লেখায় বন্য বানরের ব্যাপক উ’প’দ্র’ব দেখা দিয়েছে। দিনে-দুপুরে আ’ক্র’ম’ণে’র শি’কা’র হচ্ছেন নিরীহ মানুষজন।

এ পর্যন্ত বানরের আ’ক্র’ম’ণে আ’হ’ত হয়েছেন পুলিশ কনস্টেবলসহ ৭ জন। বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ বিভাগের বড়লেখা রেঞ্জ কর্মকর্তা জুলহাস আহমদ জানান, বন্য বানর তাড়ানোর প্রয়োজনীয় সরকারি সাপোর্ট তাদের সরবরাহ করা হয়নি।

শাহবাজপুরের সমাজসেবক রফিক উদ্দিন আহমদ জানান, আগে ১টি বানর দেখা যেত, তেমন উৎপাত করত না। কিন্তু এখন একে একে ৬টি বানরের আবির্ভাব ঘটেছে। দিনে-দুপুরে পথচারীদের আ’ক্র’ম’ণ করে বসছে। ঘরে ঢুকে খাবার নিয়ে যাচ্ছে। জিনিসপত্র নষ্ট করছে। বানরের এরকম মারমুখী চালচলনে মানুষ আ’ত’ঙ্কি’ত।

জানা গেছে, রোববার ভোরে মসজিদ থেকে ফজরের নামাজ পড়ে বাড়ি ফেরার পথে শাহবাজপুর বাজার সংলগ্ন রাজপুর এলাকায় বানরের আ’ক্র’ম’ণে’র শি’কা’র হয়ে মা’রা’ত্ম’ক আ’হ’ত হন সায়পুর গ্রামের মো. আব্দুল্লাহ (৩০)। পরে এলাকার লোকজন তাকে উদ্ধার করে বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme
[X]