সর্বশেষ আপডেট
সর্বনাশের আগে ব’ন্যাকে সাজগোছ করায় রুবেল,তারপর…

সর্বনাশের আগে ব’ন্যাকে সাজগোছ করায় রুবেল,তারপর…

হ’ত্যার আগে স্ত্রী’ ব’ন্যাকে সাজগোছ করিয়ে রাজধানীর বোটানিক্যাল গার্ডেনে নিয়ে যায় কিশোর গ্যাং লিডার রুবেল। এরপর তার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হ’ত্যা করে লা’শ ডোবায় ফেলে দেয়া হয়। পু’লিশ জানায়, বেড়ানোর কথা বলে কিশোর গ্যাং লিডার রুবেল তার স্ত্রী’কে রাজধানীর বোটানিক্যাল গার্ডেনে নিয়ে যায় মঙ্গলবার। সুযোগ বুঝে সহযোগী তারিকুল ইস’লামকে নিয়ে ব’ন্যাকে খু’ন করে লা’শ ডোবায় ফেলে দেয়।

বৃহস্পতিবার ভোরে ব’ন্যার লা’শ উ’দ্ধার করেছে পু’লিশ। ব’ন্যার মা বাদী হয়ে রাজধানীর শাহআলী থা*নায় হ’ত্যা মা’মলা করার পর বৃহস্পতিবারই গ্রে’ফতার করা হয় ঘা’তক রুবেল ও তাদের সহযোগী তারিকুলকে। রুবেল ও তার সহযোগী শুক্রবার ব’ন্যাকে হ’ত্যার কথা স্বীকার করে আ’দালতে জবানব’ন্দি দিয়েছেন।

এদিকে ব’ন্যাদের বাসা রূপনগর আবাসিক এলাকার খু’নি রুবেলের ফাঁ’সির দাবিতে বি’ক্ষো*ভ করেছে স্থানীয়রা। ব’ন্যার পরিবারের অ’ভিযোগ, ব’ন্যাকে হ’ত্যার পর রুবেলের পরিবার উৎসবের আয়োজন করে। জানতে চাইলে শাহআলী থা*নার ভারপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) মো. সালাউদ্দিন মিয়া বলেন, মা’মলা করার পরপরই আম’রা আ’সামি রুবেল এবং তার সহযোগী তারিকুলকে গ্রে’ফতার করি। তারা হ’ত্যার কথা স্বীকার করে আ’দালতে জবানব’ন্দি দিয়েছে।

তিনি জানান, পু’লিশের জিজ্ঞাসাবাদে তারা ব’ন্যাকে ওড়না পেঁচিয়ে হ’ত্যার কথা জানায়। পু’লিশ ও পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মঙ্গলবার রাতে রুবেল স্ত্রী’কে সাজিয়ে-গুছিয়ে বোটানিক্যাল গার্ডেনে বেড়াতে নিয়ে যায়। সেখানে ব’ন্যার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হ’ত্যা করা হয়। পরে লা’শ ডোবায় ফেলে দেয়া হয়।

এরপর বৃহস্পতিবার পু’লিশ ডোবা থেকে লা’শ উ’দ্ধার করে। এ সময় স্থানীয়রা লা’শ উ’দ্ধারে সহযোগিতা করে। উ’দ্ধার অ’ভিযানের এক পর্যায়ে রুবেল নিজেই পু’লিশকে সহযোগিতা করে। সূত্র জানায়, এক সময় রূপনগরের পাশাপাশি কক্ষে থাকত ব’ন্যা (১৬) ও রুবেলের (১৮) পরিবার। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে ভালোবাসার স’ম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে দুই পরিবারের সম্মতিতে তাদের মধ্যে বিয়ে হয়। তবে বিয়ের পর থেকেই দুই পরিবারের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ চলছিল।

কিছুদিন আগে রুবেলের পিতা ক্ষিপ্ত হয়ে ব’ন্যার পরিবারের সবাইকে হ’ত্যা করার হুমকি দেন। এ সময় তিনি বলেন, যা করা লাগে আমি করব বলেই রুবেলকে আশ্বস্ত করেন। এরপরই রুবেল তার স্ত্রী’ ব’ন্যাকে হ’ত্যার পরিকল্পনা করে এবং সে অনুযায়ী তাকে বোটানিক্যাল গার্ডেনে নিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার লা’শ উ’দ্ধারের পর শাহআলী থা*নায় হ’ত্যা মা’মলা করেন ব’ন্যার মা পপি আক্তার।

ব’ন্যার মা কা’ন্নাজ’ড়িত কণ্ঠে বলেন, আমা’র মেয়ের খবর তো আমি আর পাই না। আমা’র মেয়েকে মে’রে ওরা পানির তলে রেখেছিল। আমা’র মেয়ে আর মা বলে ডাক দেবে না। আহাজারি করতে করতে বলেন, আমা’র সোনার চান কালা হয়ে গেছে। ব’ন্যার বাবা জসিম উদ্দিন বলেন, আমা’র মেয়েকে না খাওয়াতে পারলে আমা’র কাছে বুঝিয়ে দিত। কিন্তু কেন তারা আমা’র কলিজার টুকরাকে এভাবে খু’ন করল।

স্থানীয়রা জানান, কিশোর গ্যাংয়ের সঙ্গে যুক্ত হয়ে অনেক দিন থেকেই নানা ধরনের অ’পকর্ম চালিয়ে যাচ্ছিল বখাটে রুবেল। তার অ’পকর্মে অ’তিষ্ঠ ছিল এখানকার লোকজন।ব’ন্যার পরিবারের অ’ভিযোগ, হ’ত্যা করার পর রুবেলের বাড়িতে উৎসবের আয়োজন করা হয়। সেখানে তারা মাংস-পোলাও, খিচুড়ি রান্না করে খাবার আয়োজন করে। সূত্র : যুগান্তর।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme
[X]