সর্বশেষ আপডেট
ছেলেকে হ;ত্যা;র পর ডা’কা’তি নাটক সাজালেন সৎ মা

ছেলেকে হ;ত্যা;র পর ডা’কা’তি নাটক সাজালেন সৎ মা

বাসায় জোরে সাউন্ড দিয়ে টিভি দেখছিল আট বছরের শিশু সাইফ। সাউন্ড কমাতে বলেন সৎমা সাবরিনা নাহার সিনথী। সাইফ কথা না শোনায় হাত-পা বেঁ’ধে বাসার একটি কক্ষে আ’টকে রাখা হয় তাকে।৩০ থেকে ৪০ মিনিট পর রুম খুলে দেখতে পান সাইফ বেঁচে নেই। পরে হাত-পা বাঁ’ধা অবস্থাতেই সাইফকে বাথরুমে পানির বালতিতে মুখ ডুবিয়ে রাখেন। পরে ডা’কাতির নাটক সাজিয়ে সাইফের বাবাকে ফোন দেন।

গ্রেপ্তা’রকৃত সাইফের সৎ মা সাবরিনা নাহার সিনথি আদালতে দেয়া স্বী’কারোক্তিমূ’লক জবা’নব’ন্দিতে একথা জানিয়েছেন।গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুনিরা সুলতানা এ জবা’নব’ন্দি লিপিব’দ্ধ করেন। পরে তাকে কা’রাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়।টাঙ্গাইল জেলা গো’য়েন্দা পুলিশের (ওসি) শ্যামল কুমার দত্ত আরটিভি অনলাইনকে জানান, টাঙ্গাইল শহরের আমিন বাজার এলাকায় সাইফের বাবা ভাড়া বাসায় থাকতেন।

নি’হত সাইফের সৎ মা গেল শনিবার রাত আটটার দিকে ফোন করে সাইফের বাবা সালাউদ্দিনকে জানান, অ’জ্ঞাতনামা তিনজন দু’র্বৃত্ত তাদের বাসায় ঢুকে তার ও ছেলের হাত-পা বেঁধে স্বর্ণালঙ্কার লু’ট করে নিয়ে গেছে। তারা যাওয়ার সময় সাইফকে বাথরুমে পানির বালতিতে ডুবিয়ে রেখে গেছে। ফোন পেয়ে সাইফের বাবা তার কম্পিউটার সেন্টার থেকে বাসায় গিয়ে ছেলেকে উ’দ্ধার করে জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান।

এ সময় ডাক্তার তাকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে মৃ’ত ঘোষণা করেন।খবর পেয়ে টাঙ্গাইল সদর থানা পুলিশ ও গোয়ে’ন্দা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তদ’ন্ত শুরু করে। সাবরিনা নাহারের ঘটনার বর্ণনাটি তাদের রহ’স্যজনক মনে হয়। পরে পুলিশ সাবরিনা নাহার ও তার স্বামী সালাউদ্দিনকে আ’টক করে। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে সাবরিনা সাইফকে হাত-পা বেঁ’ধে ঘরে আটকে রাখার একপর্যা’য়ে মৃ’ত্যু হয় বলে জানান। পরে তাকে আদালতে হাজির করা হলে সে হ’ত্যার ঘটনা বর্ণনা করে জবা’নব’ন্দি দেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme