সর্বশেষ আপডেট
এসএসসির ফরম পূরণে অতিরিক্ত অর্থ আদায়, অসহায় মায়ের কান্না । সৌদিতে না’রী ক’র্মীর বিষয়টি খুবই জটিলঃ পররা’ষ্ট্র ম’ন্ত্রী । মালয়েশিয়ার আদালতে ৪ বাংলাদেশি না’রীর কা’রাদ’ন্ড।, নেপথ্যে যে কারণ… ইতালিতে ম’সজিদে এ’কযো’গে হা’মলার প’রিক’ল্পনাঃ বিপুল পরিমান অ’স্ত্র উ’দ্ধার । মক্কায় ক্রে’ন দু’র্ঘটনাঃ আ’হত বাংলাদেশিকে যে প’রিমাণ ক্ষ’তিপূ’রণ দেয়া হলো । সৌদিতে গৃ’হক’র্মী নি’র্যা’ত’ন, দ্রু’ত’ই আ’সছে না কোন সু’সংবা’দ । গুলতেকিনের দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে যা বললেন বড় ছেলে নুহাশ । সৌদি থেকে ফিরেছে ৫৩ নারীর মরদেহ, যা বললেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী । কিশোরগঞ্জে কুমারী মাতার সন্তান প্রসব নিয়ে তোলপাড় । মেয়েরা মিলনের চেয়েও বেশি পছন্দ করে এই বিষয়গুলো ।
সাকিব ভক্তদের জন্য দুঃসংবাদই থেকে যাচ্ছে!

সাকিব ভক্তদের জন্য দুঃসংবাদই থেকে যাচ্ছে!

সাকিব আল হাসানের শাস্তি কমছে না। কমপক্ষে এক বছর তার ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকবেই! তা ছাড়া সাকিবকে নিয়ে আইসিসি যে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে তার উপসংহারে (৩৩.৫ অনুচ্ছেদ) পরিষ্কারভাবে লেখা আছে- ‘আর কোনো শুনানির প্রয়োজন নেই।’ তাই সাকিবের শাস্তি কমবে -এরকম ভাবনা এক ধরনের আত্মতৃপ্তি বলা যায়।

এ ছাড়া আর কিছুই নয়! নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিসিবির এক পরিচালক বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেছেন, ‘এ নিয়ে অবশ্য মন্তব্য করার কিছু নেই। তবে আমি যতদূর জানি, এক বছর থেকে কমানোর কোনো রাস্তা নেই।’ তাই ২০২০ সালের অক্টোবরের আগে সাকিবকে দলে পাচ্ছে না বাংলাদেশ!

তবে সাকিবের শাস্তি এক বছর থেকে কমানোর কোনো বিধান আছে কিনা তা জানতে যোগাযোগ করা হয়েছিল আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিটের বাংলাদেশ প্রতিনিধি মেজর (অব.) মাহবুব মোর্শেদের সঙ্গে। কিন্তু এ বিষয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। সাকিব আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিটের কাছে নিজেই তার অপরাধ স্বীকার করে ইউনিটকে সহযোগিতাও করেছেন।

এ কারণে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেও তার মধ্যে রয়েছে এক বছরের স্থগিত নিষেধাজ্ঞা। তার মানে আইসিসির শর্ত মেনে চললে (অর্থাৎ ভালো আচরণ করলে) তিনি এক বছর পরই মাঠে ফিরতে পারবেন। অন্যথায় নিষেধাজ্ঞা দুই বছরই বহাল থাকবে। তাই এক বছরের কম হওয়ার কোনো সুযোগ থাকছে না।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে সাকিবের কেন্দ্রীয় চুক্তি না থাকলেও বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে অনুশীলন করার এবং তার ফিটনেস ধরে রাখার জন্য জিমের অনুমতি দেবে বিসিবি। সাকিব আল হাসান যে বাংলাদেশের ক্রিকেটের প্রাণ- অনেকবারই তার প্রমাণ দিয়েছেন! টাইগারদের অধিকাংশ জয়ও এসেছে সাকিবের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের কারণেই।

২০১৭ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে বাংলাদেশ যে প্রথমবারের মতো সেমিফাইনালে উঠেছিল তা বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের কারণেই। ওয়েলসের কার্ডিফে অনুষ্ঠিত নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সেই ম্যাচটি এখনো ক্রিকেটামোদীদের চোখের সামনে ভাসছে। কিউইদের দেওয়া ২৬৯ রানের পাহাড়সম টার্গেট তাড়া করতে নেমে মাত্র ৩৩ রানেই ৪ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, সৌম্য সরকার ও সাব্বির রহমান ড্রেসিংরুমে ফেরার পর যখন টাইগারদের হার অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল ঠিক তখনই মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন সাকিব। গড়েন ২২৪ রানের মহাকাব্যিক এক জুটি (ওয়ানডে বাংলাদেশের রেকর্ড পার্টনারশিপ)।

সেই ম্যাচে ১১৪ রানের অতিমানবীয় এক ইনিংস খেলে বাংলাদেশকে জিতিয়ে ম্যাচ সেরার পুরস্কার পান সাকিব। এমন আরও অনেক উদাহরণ আছে! বলতে গেলে বাংলাদেশের ক্রিকেটের অধিকাংশ রেকর্ডই সাকিবের গড়া। সর্বশেষ বিশ্বকাপে সাকিব তো জাদুকরী পারফরম্যান্স দেখিয়ে গোটা ক্রিকেটবিশ্বকেই অবাক করে দিয়েছেন।

ক্রিকেটাতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে বিশ্বকাপের এক আসরে ৫০০ রান ১০ উইকেট নেওয়ার অনন্য গৌরব অর্জন করেছেন। এক আসরে ৫০-এর বেশি ৭ ইনিংস খেলে ভারতীয় ব্যাটিং জিনিয়াস শচীন টেন্ডুলকারের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দ্রুততম সময়ে ১১০০০ রান (১১,৭৫২ রান) ও ৫০০ উইকেট (৫৬২ উইকেট) অনন্য রেকর্ড গড়েছেন।

একসঙ্গে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-২০-তে আইসিসির র‌্যাঙ্কিংয়ে সেরা অলরাউন্ডার হয়ে বাংলাদেশের ভাবমূর্তিকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। কিন্তু এক ভুলেই সেই সাকিব এখন নায়ক থেকে ভিলেন হয়ে গেলেন। সেই সাকিব কেন এমন একটা ভুল করতে গেলেন! তার বিরুদ্ধে ফিক্সিংয়ের কোনো প্রমাণ নেই।

এমনকি তার ব্যাংক অ্যাকাউন্টেও অস্বাভাবিক লেনদেনের কোনো তথ্য পায়নি আইসিসি। কিন্তু কেন তিনি জুয়াড়িদের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করার পরও তা আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিটকে জানাতে ভুলে গেলেন? সবকিছু মিলে তৈরি হচ্ছে ধোঁয়াশা! সাকিবের নিষেধাজ্ঞায় ভীষণ কষ্ট পেয়েছেন ক্রিকেটামোদীরা। দেশের বিভিন্ন জায়গায় সমর্থকরা বিক্ষোভ মিছিল করেছেন।

দেশের বাইরেও তার ভক্তরা সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছেন। ভারতের কিংবদন্তি ক্রিকেটার ‘দ্য ওয়াল’ খ্যাত রাহুল দ্রাবিড়ও এক টুইটে আইসিসিকে সাকিবের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে, আইসিসির সিদ্ধান্তের বিষয়ে সাকিবের আর আবেদন করারও সুযোগ নেই!

তবে এই দুঃসময়ে অস্ট্রেলিয়ার তারকা ব্যাটসম্যান স্টিভ স্মিথ হতে পারেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের জন্য অনুপ্রেরণা। বল টেম্পারিংয়ের জন্য ‘নিষিদ্ধ’ স্মিথ এক বছরে নিজেকে আরও বেশি পরিণত করেছেন। বেশি বেশি অনুশীলন করে ক্রিকেটের জন্য নিজেকে ক্ষুরধার করেছেন। এ সময় স্মিথকে সহযোগিতা করেছেন তার স্ত্রী। সাকিবের স্ত্রী শিশিরও তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে দাবি করেছেন, ‘সাকিব আরও শক্তিশালী হয়ে ফিরবে।’ সেই শক্তিশালী সাকিবকে দেখার প্রতীক্ষায় এখন বাংলাদেশ! ভক্তদের প্রত্যাশা- চ্যাম্পিয়ন সাকিব ফিরুক চ্যাম্পিয়নের মতোই!

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme
[X]