সর্বশেষ আপডেট
মেডিকেলে চান্স পেলো রাজমিস্ত্রির মেয়ে জাকিয়া সুলতানা কলেজে না গিয়েও এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় দ্বিতীয় নেহা । বাংলাদেশি কর্মীদের প্রশংসা করে যা বললেন মালয়েশিয়ার পুলিশপ্রধান । বাড়ির নিচতলায় গাড়ী চালকদের জন্য থাকা ও নামাজের ব্যবস্থা করতে হবেঃ প্রধানমন্ত্রী । প্রেমের টানে বাংলাদেশে ভারতীয় গৃহবধূ, সীমান্তে উত্তে’জনা । গোয়ালঘরে শিকলে বাঁধা বৃদ্ধা মা বললেন, মোর পোলারা ভালো । সাড়ে ৮ লাখ টাকা দিয়েও চাকরি হয়নি, কাঁদলেন প্রার্থী । গরু ছেড়ে নারীদের প্রতি বেশি যত্নবান হোনঃ মোদিকে এক নারী । যে কারণে তুহিনকে নি’র্মমভাবে হ’ত্যা করলেন বাবা । পিয়ন থেকে যেভাবে ১২০০ কোটি টাকার মালিক যুবলীগের আনিস ।
হকারের জুস খেয়ে যেভাবে মৃ’ত্যু হলো সুস্মিতার, জানুন বিস্তারিত…

হকারের জুস খেয়ে যেভাবে মৃ’ত্যু হলো সুস্মিতার, জানুন বিস্তারিত…

ময়মনসিংয়ের গৌরীপুরের ডৌহাখলা ইউনিয়নের সুস্মিতা হোম চৌধুরী (মন্টি) হকারের কাছ থেকে কেনা জুস পান করে মা’রা গেছেন। ময়মনসিংহ ব্রিজ মোড় থেকে কেনা জুস খেয়ে মৃ’ত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে আজ বুধবার মৃ’ত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি।

জানা গেছে, মুমিনুন্নেছা কলেজ থেকে গণিতে অনার্স ও সদ্য মাস্টার্স পাস করেছেন তিনি। দুটোতেই প্রথম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হয়ে গত সপ্তাহে ঢাকায় আসেন।ঢাকায় আসার পথে ময়মনসিংহ ব্রিজের মোড় থেকে পানি কেনেন।

সে সময় দুই শি’শু তার কাছে জুস বিক্রি করার জন্য খুব অনুনয় বিনয় করে। বাচ্চাদের এরকম অনুনয় বিনয়ে তার মায়া হয়। একটা জুসের বোতল কিনে নেন তিনি। বোতলটি ব্যাগে রেখে দেন পরে খাবেন কিংবা তার ছোট ভাগ্নেকে দেবেন বলে।

কিন্তু জুসের কথা তিনি ভুলে যান। ভাগ্নে কিংবা তার নিজের আর খাওয়া হয় না। ঢাকা থেকে বাড়ি ফিরে ব্যাগের কাপড় সরাতে গিয়ে জুসের বোতল চোখে পড়ে। এরপর তিনি মাকে বলেন, আজ রাতে ভাত খাব না, শুধু একটু দুধ আর এই জুস খেয়ে নেব।

তার মা আর জো’র না করলে জুস খেয়ে ঘুমাতে যান তিনি। পরদিন সকালে আর তার ঘুম ভাঙে না। যে মেয়ে প্রতিদিন ভোরে ঘুম থেকে ওঠে, সকাল ১০ টায়ও তার জেগে ওঠার খবর নেই!

জো’র করে যখন তার ঘুম ভাঙানোর চেষ্টা চলছে তাকে, বিছানায় বসানো হলেও তিনি আর মাথা তুলতে পারেননি। ডাক্তার নিয়ে আসা হলে প্রাথমিক চিকিৎসা চলে। তবে অবস্থার পরিবর্তন না হওয়ায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাস*পাতালে ভর্তি করা হয়। তিনদিন চিকিৎসা চলে সেখানে। অবস্থার তেমন পরিবর্তন না হওয়ায় ডাক্তাররা ঢাকা পাঠানোর পরাম’র্শ দেন।

কিন্তু ঢাকা নিয়ে যাওয়ার পথে শারীরিক অবস্থার অবণতি হতে থাকে তার। ত্রিশালের কাছ থেকে পুনরায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাস*পাতালে ফিরে আসে। তখন ডাক্তার জানালেন, সুস্মিতা আর বেঁচে নেই।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme
[X]